জম্মু-কাশ্মীর সফরে সন্তুষ্ট বিদেশি কূটনীতিকরা।

জম্মু-কাশ্মীর সফরে সন্তুষ্ট বিদেশি কূটনীতিকরা।

দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,Bangla News, bangla News paper,Bangla All News paper List,bangla khobor,Bollywood,hindi movie,new movie 2021,tamil movie  দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,how to earn money online without investment,how to make money online in nigeria,how to earn money online with google,how to earn money online without paying anything,how to earn money online for students,how to earn money online in india,how to earn money online in bangladesh,how to earn money online philippines,how to make money online for free


জম্মু ও কাশ্মীর সফরের প্রথম দিন বুধবার বিদেশি কূটনীতিকরা সব রাজনৈতিক দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করেন। গত বছর অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন কাউন্সিলের (ডিডিসি) নির্বাচন প্রসঙ্গে শ্রীনগর পৌর কর্পোরেশনের মেয়র জুনায়েদ মট্টু বলেছেন, নির্বাচনগুলি সামগ্রিকভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু ছিল।

জুনায়েদ মট্টুর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএনআই বলেছে যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ক্ষমতায়নের সবচেয়ে বড় প্রমাণ হ’ল অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলি সহ আরও বেশ কয়েকটি দেশের কূটনীতিকরা জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি এবং কেন্দ্রীয় সরকার গৃহীত উদ্যোগগুলি পর্যবেক্ষণ করতে জম্মু ও কাশ্মীরে দু’দিনের সফর করেছেন।

শ্রীনগরের মেয়র বলেছেন, স্থানীয় সংস্থা থেকে শুরু করে বিদেশি কূটনীতিকদের জেলা উন্নয়ন কাউন্সিলের (ডিডিসি) ঐতিহাসিক নির্বাচন সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে। সেখানে আসা লোকেরা বাস্তবতা জানতে চেয়েছিলেন।

হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডাল লেকের তীরে শের-ই-কাশ্মীর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (এসসিসিসি) আলোচনায় সব দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছিলেন।

মট্টু বলেন, আলোচনার মূল বিষয় হ’ল বিদ্যুতের বিকেন্দ্রীকরণ এবং পরিকল্পনা এবং তৃণমূলের প্রতিনিধিদের ক্ষমতায়ন।

“আমি বিশ্বাস করি যে তৃণমূল পর্যায়ে স্থানীয় প্রতিনিধিদের ক্ষমতায়ন করা এখনই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়,” তিনি বলেছিলেন।

সরকারী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, সেনেগাল এবং তাজিকিস্তানের কূটনীতিকদের কঠোর নিরাপত্তায় কাশ্মীরের মাগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

এই বিদেশী কূটনীতিকদের মধ্যে ব্রাজিল, ইতালি, ফিনল্যান্ড, কিউবা, চিলি, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, স্পেন, সুইডেন, কিরগিজস্তান, আয়ারল্যান্ড, ঘানা, এস্তোনিয়া, বলিভিয়া, মালাভি, ইরিত্রিয়া এবং আইভরি কোস্টের কূটনীতিকদেরও অন্তর্ভুক্ত ছিল।

শের-ই-কাশ্মীর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আলোচনার শেষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিল্লিতে বলিভিয়ান দূতাবাসের দায়িত্বরত জোয়ান জোসে কর্টেজ রোজাস ভারত সরকারের প্রশংসা করে বলেন, আমরা বুঝতে পেরেছি যে এখানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। ” দারুণ ব্যাপার।

তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে এখানকার মানুষ খুব খুশি।

ঘটনাক্রমে, ৫ আগস্ট ২০১৯-এ, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদার ৩৭০ ধারা বাতিল করে। জম্মু ও কাশ্মীর তখন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে বিভক্ত ছিল।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

Leave a Reply