কারাগারে মুশতাককে হত্যা করা হয়েছে

কারাগারে মুশতাককে হত্যা করা হয়েছে: মির্জা ফখরুল

দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,Bangla News, bangla News paper,Bangla All News paper List,bangla khobor,Bollywood,hindi movie,new movie 2021,tamil movie দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,how to earn money online without investment,how to make money online in nigeria,how to earn money online with google,how to earn money online without paying anything,how to earn money online for students,how to earn money online in india,how to earn money online in bangladesh,how to earn money online philippines,how to make money online for free
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।-ফাইল ছবি


বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, লেখক মোশতাক আহমেদকে কারাগারে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেছেন, মোশতাকের মতো অরাজনৈতিক চিন্তাভাবীর মৃত্যুর সাথে রাষ্ট্রীয় শক্তি জড়িত।

শুক্রবার মির্জা ফখরুল এক বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছেন। মুশতাক আহমেদ ডিজিটাল সুরক্ষা আইনের একটি মামলায় বৃহস্পতিবার কাশিমপুর কারাগারে মারা যান।

মির্জা ফখরুল বলেছেন, তথ্য প্রযুক্তির বর্তমান যুগে সামাজিক গণমাধ্যমের মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন অসঙ্গতি নিয়ে নিজের মতামত প্রকাশের সুযোগ গণতান্ত্রিক বিশ্বে সর্বজনস্বীকৃত। কিন্তু বাংলাদেশের আওয়ামী সরকার কলাকানুনের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখা সহ্য করছে না। যারা নির্দ্বিধায় তাদের মতামত প্রকাশের চেষ্টা করছেন তাদের নিখোঁজ হতে হবে বা সরকারি হেফাজতে মারা যেতে হবে। তার সর্বশেষ শিকার মুশতাক আহমেদ।

আরও পড়ুনঃ মোবাইল থেকে অর্থ উপার্জনকারী অ্যাপস দিয়ে কীভাবে উপার্জন করবেন

কারাগারে মোশতাক আহমেদকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, মোশতাক লুটেরা, কালোবাজারি, সন্ত্রাসী বা ডাকাত ছিলেন না। মোশতাক একজন সৎ ও সাহসী মানুষ ছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেছিলেন, “ফেসবুকে একজন স্বাধীন লেখকের মৃত্যু, মোশতাকের মতো একটি আপোনিক, নির্দোষ এবং স্বায়ত্তশাসিত চিন্তাবিদ মারা যাওয়া কোনও সাধারণ ঘটনা নয়, এতে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা জড়িত।” সরকারী হেফাজতে মোশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিরুদ্ধে আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ”তিনি এই ঘটনার বিষয়ে নিরপেক্ষ বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান।

দেশে এখন নতুন বাকশালী শাসন ব্যবস্থা বজায় রাখা হয়েছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেছিলেন যে জনগণকে নিরব করার জন্য গুম, খুন, ক্রসফায়ার এবং পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুকে রাষ্ট্রীয় জীবনের একটি অঙ্গ করা হয়েছে। সরকারের বিরুদ্ধে সত্যিকারের সমালোচনা করেও তারা ভয় দেখায়। রাজ্য ধীরে ধীরে মাফিয়ার রূপ নিয়েছে। জনগণের দৃষ্টিভঙ্গি তাদের অপকর্ম থেকে দূরে রাখতে সরকার বিশ্ব থেকে বিবেকবান, স্বতন্ত্র লেখকদের সরানোর পদক্ষেপ নিয়েছে।

মির্জা ফখরুল আশা প্রকাশ করেছিলেন যে মোশতাকের মৃত্যুর সাথে সাথে দেশের তরুণ সমাজ জেগে উঠবে এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও নাগরিক স্বাধীনতা সহ সুশাসন এবং আইনের শাসন দেশে ফিরে আসবে।

এ ছাড়া গত বছরের মে মাসে বিএনপির মহাসচিব মুশতাক আহমেদের সাথে ডিজিটাল সুরক্ষা আইনে আটক হওয়া কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরকে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান।
সূত্র : প্রথম আলো 

Leave a Reply