যে সব কারনে ফেসবুকের রিচ কমে যেতে পারে

যে সব কারনে ফেসবুকের রিচ কমে যেতে পারে-Facebook
অনেক কারনেই ফেসবুকের রিচ কমে যেতে পারে যার ফলে অ্যাডের পারফর্মেন্স হয়ে যেতে পারে খারাপ, সেল যেতে পারে কমে।

দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,Bangla News, bangla News paper,Bangla All News paper List,bangla khobor,Bollywood,hindi movie,new movie 2021,tamil movie

 

কিছু কারন নিচে দেয়ার চেস্টা করলাম
 
মোবাইল থেকে অর্থ উপার্জনকারী অ্যাপস দিয়ে কীভাবে উপার্জন করবেন
কি করে Online Business সফল হবেন
Affiliate Marketing কী এবং কীভাবে এটি থেকে অর্থ উপার্জন করা যায় 
 
ফেসবুক তাদের অলগারিদম পরিবর্তন করে
এটা একটা কারন আপনার অ্যাডের রিচ কমে যাওয়া, এটা অনেকটা গুগুলের র‍্যাঙ্ক ড্রপ করার মত, গুগুলের র‍্যাঙ্ক অনেক সময় তাদের অলগারিদম পরিবর্তনের কারনে ড্রপ করে, এটা কোন শাস্তি না এটাকে একরকম “Adjustment” বলা যেতে পারে আপনার প্রোডাক্ট কে অন্য প্রোডাক্ট এর সাথে ফিট করার জন্য। এটাকে ফিরিয়ে আনতে আসলে আপনার তেমন কিছু করার নাই তবে একটা সময় আপনার এখন যা আছে তার থেকে অনেক বেশি কিছু পাবেন এটা আশা করা যায়।
 
আপনি অনেক বেশি প্রমোশনাল
ফেসবুক অ্যাড এবং নরমাল পোস্ট আলাদা করে রাখতে চায়, তাদের লক্ষ্য থাকে সকল প্রকার প্রমোশনাল পোস্ট এবং অ্যাড লিমিটেড করে রাখা যখন অরগানিক পোস্ট ভালো রেজাল্ট করে কোন রকম অ্যাড ছাড়া, যার অর্থ হলো আপনি যদি খুব বেশি মাত্রায় প্রমোশনাল হয়ে যান আপনি রিচের পরিমান হারাতে পারেন, নির্দিষ্ট ভাবে বলতে গেলে যে পোস্টগুলি ফেসবুক অত্যধিক প্রচারমূলক বলে মনে করে সে সব তাদের আগ্রহের বাইরে চলে যেতে পারে। 
তাই বিভিন্ন প্রমোশনের পাশাপাশি আপনাকে নরমাল পোস্টও দিতে হবে, উপকারি পোস্ট দিতে হবে, শেয়ার হয় এরকম পোস্ট দিতে হবে যেন ফেসবুক মনে করে এই পেজ প্রমোশন ছাড়াও বেশ জনপ্রিয়।
 
আপনি পোস্ট করা বন্ধ করে দিয়েছেন
ফেসবুক অলগারিদমের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে সময় মত পোস্ট করা। যারা আপনার পোস্ট দেখতে পছন্দ করে তারা প্রতিনিয়ত আপনার পোস্ট দেখতে চায়, ১০-১২ দিন পর পর না। তাই আপনি যদি রেগুলার পোস্ট না করেন তারা আপনার উপর আগ্রহ হারাবে। 
কম পোস্ট করা মানে হচ্ছে কম রিচ যেটাকে “textbook declining reach” বলা হয়ে থাকে, তাই নিয়মিত পোস্ট করেন, সবই যে সেলের পোস্ট হতে হবে সেটা না, আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের সাথে যায় এরকম পোস্ট করেন, আপনার দর্শকদের আপ টু ডেট রাখেন। আপনি যদি নিয়মিত সময় না করতে পারেন আপনি পোস্ট শিডিউল করে রাখতে পারেন।
 
এরকম গাইডলাইন মূলক লেখা নিয়ে আমার লেখা একটা বই আছে, “ফেসবুক মার্কেটিং” নামে। আগ্রহী হলে আমাকে ইনবক্স করতে পারেন।
 
আপনি টাকা দিয়ে ফলোয়ার কিনছেন
বিভিন্ন ক্লিকবেস ওয়েবসাইট থেকে লাইক কিনছেন? আন ক্যাটাগরাইজড লাইক কিনছেন? এর মাধ্যমে আপনার পেজে লাইক আসবে কিন্তু তারা একবার ও আপনার পেজে গিয়ে কিছু দেখবে কিনা সেটা নিয়ে সন্দেহ আছে, আর ফেসবুক তো এগুলা দেখে তাই না? যখন সে দেখবে ১০ লাখ লাইকের একটা পেজের পোস্টে ১০টা লাইক তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই আপনি ব্ল্যাকলিস্টে চলে যাবেন ফেসবুকের আর আপনার রিচও কমে যাবে। আর ক্লিকবেস ওয়েবসাইট থেকে লাইক নিলে সেটা দিনে দিনে কমতে ও থাকে।
 
আপনি আপনার ক্রেতা অনুযায়ী টার্গেট করছেন না
ফেসবুকের অ্যাড এ ডিটেইল টারগেটিং ফিচার আছে এটা চমৎকার ভাবে কাজ করে আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের দর্শকের কাছে ঠিক মত অ্যাড পৌঁছে দেয়ার ব্যাপারে। এটা তাদের কাছেই অ্যাড নিয়ে যায় যারা ফেসবুক পোস্টে এংগেজ হতে পছন্দ করে, আর যার ফলে আপনার পোস্ট ভালো রিচ এবং এঙ্গেজ পায়, আর আপনি যদি টার্গেট করে অ্যাড দিয়ে অভ্যস্ত থাকেন আর সেটা হুট করে বন্ধ করে দেন আপনার রিচ ড্রপ করবে।

লিখেছেনঃ- Md. Ariful Islam

 

লাইকি থেকে টাকা ইনকাম

টিকটক থেকে আয়

Leave a Reply