আমেরিকান বৈদ্যুতিক যানবাহন সংস্থা ফিসকার ভারতে বৈদ্যুতিক গাড়ি লঞ্চ করবে | US based Electric Vehicles Company Fisker to Launch Electric Car in India

electric car price in usa, electric car in canda, electric car price in italy, electric car price, electric car australia, electric car in india, electric car companies, electric car brands, electric car import tax, electric car battery,

US based Electric Vehicles Company Fisker to Launch Electric Car in India. আমেরিকান বৈদ্যুতিক যানবাহন সংস্থা ফিসকার ভারতে বৈদ্যুতিক গাড়ি লঞ্চ করবে।

Electric Vehicles Company Fisker Launch Electric Car in India, electric car price in usa, electric car in canda, electric car price in italy, electric car price, electric car australia, electric car in india, electric car companies, electric car brands, electric car import tax, electric car battery,

ভূমিকা:

বৈদ্যুতিক যানবাহন শিল্প কোম্পানি ফিসকার, যা ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত, ২০২৪ সালের মধ্যে ভারতে ফিসকার Fisker পিয়ার বৈদ্যুতিক গাড়ি চালু করবে।

বর্ণনা:

Fisker ফিসকার কোম্পানিটি ২০১৬ সালে বিখ্যাত অটো ডিজাইনার হেনরিক ফিসকার দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, যিনি BMW এবং Aston Martin এর জন্য গাড়ি ডিজাইন করেছেন। হেনরিক ফিসকার ভারতে বৈদ্যুতিক যানবাহনে প্রচুর সম্ভাবনা দেখেন।

এ জন্য কোম্পানিটি ভারতের হায়দ্রাবাদে একটি গ্লোবাল টেকনোলজি সেন্টার প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দিয়েছে। ফিসকার কোম্পানি এ জন্য ৩০০ ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগ দেবে, যারা সফটওয়্যার প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করবে। কোম্পানিটি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের জন্য ভারতের জনশক্তি/প্রতিভা ব্যবহার করতে চায় কারণ কোম্পানির মতে, ভারত সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টে খুবই শক্তিশালী।

ফিসকার ২০২৪ সালের মধ্যে ভারতে তার বৈদ্যুতিক গাড়ি পিয়ার লঞ্চ করবে। এ জন্য কোম্পানি তাইওয়ানের ইলেকট্রনিক্স কন্ট্রাক্ট নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফক্সকনকে বেছে নিয়েছে, যারা কোম্পানির জন্য ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরি করবে। কোম্পানিটি উত্পাদন সুবিধার জন্য অবস্থান ঘোষণা করেনি তবে এই উত্পাদন কেন্দ্রটি শুধুমাত্র ভারতে স্থাপন করা হবে।

 

কোম্পানির মতে, নাশপাতি বৈদ্যুতিক গাড়িটির দাম 30,000 USD (২২ লাখ টাকা) এর কম হবে৷ এই ইলেকট্রিক গাড়িতে অনেক নতুন ফিচার থাকবে যা এই সেগমেন্টের গাড়িতে নেই। কোম্পানি এই বছরের নভেম্বরে তার দ্বিতীয় SUV মডেল Ocean সারা বিশ্বে লঞ্চ করবে। কোম্পানি ভারতে ওশান মডেলও লঞ্চ করবে, যার দাম ২৭ থেকে ৫১লক্ষ টাকার মধ্যে হবে৷ কোম্পানিটি প্রথমে ওশান মডেল আমদানি করবে এবং পরে ভারতে তৈরি করবে। এই দুটি বৈদ্যুতিক গাড়ির মডেলের সাথে কোম্পানিটি Hyundai এবং MG কোম্পানির সাথে প্রতিযোগিতা করবে।

ফিসকারের আগে, টেসলাও ভারতে প্রবেশের ঘোষণা দিয়েছে কিন্তু ভারত সরকারের নীতিগুলি তার পক্ষে খুঁজে পাচ্ছে না। ফিসকার কোম্পানির মতে, এটি টেসলার আগে ভারতে তার বৈদ্যুতিক গাড়ি ফিসকার পিয়ার উৎপাদন করতে সক্ষম হবে।

কোম্পানির ২টি বৈদ্যুতিক গাড়ির মডেল রয়েছে – ওশান এবং পিয়ার। আপাতত, কোম্পানির ফোকাস আমেরিকা এবং ইউরোপ, তবে ২০২৪ সালের মধ্যে ভারতে লঞ্চ করার সাথে সাথে কোম্পানি ভারত এবং চীনের দিকেও নজর দেবে৷

বিনিয়োগকারীরা ২০২০ সালে ফিসকার কোম্পানিতে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (৭৪৫০ ​​কোটি টাকা) বিনিয়োগ করেছে। কোম্পানি ভবিষ্যতে প্রিমিয়াম সেগমেন্টে সুপারকার এবং অন্যান্য মডেল লঞ্চ করতে চায়।

সারসংক্ষেপ:

ভারতে বৈদ্যুতিক যানবাহন শিল্প ভাল গতিতে বিকাশ করছে। ২০২১ সালে, ৩ লক্ষ বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হয়েছিল যার মধ্যে ১৪,০০০টি বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হয়েছিল। এই শিল্পে আরও নতুন কোম্পানির আগমনের সাথে, ভোক্তারা অনেক সস্তা এবং ভাল বিকল্প পাবেন যা এই শিল্পের বিকাশে সাহায্য করবে।

FAQs:

একটি বৈদ্যুতিক গাড়ি কত কিলোমিটার চলে?

একটি বৈদ্যুতিক গাড়ি কতদূর যেতে পারে তা তার ব্যাটারির ক্ষমতা দ্বারা নির্ধারিত হয়। গাড়িটি ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলতে পারে যদি এর ব্যাটারির শক্তি 15 KMH হয়।

একটি বৈদ্যুতিক গাড়ী একটি ইঞ্জিন আছে?

বৈদ্যুতিক গাড়ি চলে ব্যাটারিতে। তাই, এটিতে প্রচলিত পেট্রোল/ডিজেল চালিত গাড়ির মতো একই ইঞ্জিন নেই।

কিভাবে একটি বৈদ্যুতিক গাড়ী কাজ করে?

ইলেকট্রিক গাড়ি চলে ব্যাটারি থেকে পাওয়ার নিয়ে। এতে, এর মোটরকে ব্যাটারি থেকে শক্তি দেওয়া হয় (ডিসি কারেন্টকে এসিতে রূপান্তর করে)।

কেন একটি বৈদ্যুতিক গাড়ী এত ব্যয়বহুল?

বৈদ্যুতিক গাড়ি যেহেতু ব্যাটারিতে চলে তাই আজকাল এটি তৈরির খরচ অনেক বেশি। তাই, ডিজেল/পেট্রোল গাড়ির চেয়ে বৈদ্যুতিক গাড়ির দাম বেশি। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে বৈদ্যুতিক গাড়িও সস্তা হবে।

Leave a Reply