বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা

বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, ৫০০-৬০০ জন আসামি

দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,Bangla News, bangla News paper,Bangla All News paper List,bangla khobor,Bollywood,hindi movie,new movie 2021,tamil movie দুরবিন নিউজ২৪,dorbinnews24,how to earn money online without investment,how to make money online in nigeria,how to earn money online with google,how to earn money online without paying anything,how to earn money online for students,how to earn money online in india,how to earn money online in bangladesh,how to earn money online philippines,how to make money online for free
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষ হয়।ফাইল ছবি

রাজধানীর বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় প্রায় ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। রাজধানীর পল্টন থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক এ তথ্য জানিয়েছেন।

ওসি আবু বকর সিদ্দিক জানান, ২৬ শে মার্চ রাতে এই মামলা দায়ের করা হয়েছিল। মামলায় ৫০০ থেকে ৬০০ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরের বিরোধিতা নিয়ে গত শুক্রবার বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ কমপক্ষে ৭০ জন আহত হয়েছে। সেখানে দশজন সাংবাদিক দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আহত হয়েছেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দুই দিনের সফরে শুক্রবার ঢাকায় পৌঁছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। বিভিন্ন দল ও সংস্থা তাঁর আগমনের বিরোধিতা করছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, বিভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠীর নেতাকর্মীসহ উপাসকদের একটি অংশ শুক্রবার জুমার নামাজের পর বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর ও দক্ষিণ গেটের পদক্ষেপে মোদী বিরোধী স্লোগান দেয়। ইতিমধ্যে মসজিদ গেটের আশেপাশে অবস্থান নেওয়া ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা ‘জয় বাংলা’ উচ্চারণ করতে শুরু করেন। কিছুক্ষণ পর দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে মোদী বিরোধী লোকেরা মসজিদের ভিতরে এবং অন্যদিকে মসজিদের বাইরে অবস্থান নিয়েছিল। মসজিদের ভিতরে লোকেরা ইটপাটকেল ছুড়তে শুরু করে। পুলিশ তাদের লক্ষ্য করে টিয়ার গ্যাসের গুলি ও ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।

পরিস্থিতি শান্ত হয়ে বিকেল সাড়ে তিনটায়, বহু লোক দক্ষিণ গেট দিয়ে মসজিদ থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলেন। তাদের সরকার দলের নেতাকর্মীরা তাদের পিটিয়েছে। বেলা সাড়ে ৫ টার দিকে পুলিশ ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।

শুক্রবার মোদী বিরোধী বিক্ষোভের হামলার প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামের হাটহাজারীর একটি মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। গুলিতে চারজন নিহত হয়েছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা সেদিন বিকেলে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। তিনি আক্রমণ করে রেল স্টেশন সহ বিভিন্ন স্থাপনায় আগুন ধরিয়ে দেন। সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার হাটহাজারী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গুলিতে পাঁচজন নিহত হওয়ার পর রবিবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল হেফাজতে ইসলাম। এই ধর্মঘটের ফলে দেশের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে তিন দিনের সহিংস বিক্ষোভে কমপক্ষে ১৪ জন নিহত হয়েছেন।

আরও পড়ুন:  


সূত্র :প্রথমআলো।

Leave a Reply